ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ডে বাংলাদেশিদের জয়জয়কার

লন্ডনের ব্যাটারসি এভল্যুশন সেন্টারে ‘ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ড’ এর ১৭তম উৎসব

বিশ্বের কারি শিল্পের অস্কার হিসেবে খ্যাত ‘ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ড’ এর ১৭তম আয়োজন লন্ডনের ব্যাটারসি এভল্যুশন সেন্টারে  অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কারি বিশ্বের অনন্য মর্যাদাসম্পন্ন এ পুরস্কার প্রবর্তনের আদি প্রতিষ্ঠাতা ব্রিটিশ-বাংলাদেশি উদ্যোক্তা এনাম আলি এমবিইর উদ্যোগে জাস্ট ইট এর সহযোগিতায় তারকাখচিত এবারের আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে।

ব্রিটিশ কারি শিল্পের সিংহভাগ ব্রিটিশ-বাংলাদেশি উদ্যাক্তাদের হাতে শুরু হয়ে আজ ব্রিটেনের অন্যতম জাতীয় উৎসবে পরিণত হয়েছে।  এ আয়োজনকে সাদরে স্বাগত জানিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি অত্যন্ত খুশি যে, দেশের ৫০টির বেশি বড় শহর থেকে ১০ হাজারের বেশি রেস্টুরেন্ট নিয়ে গড়া এই শিল্প আবার জমজমাট ও প্রাণবন্ত হয়ে উঠতে শুরু করেছে।

ব্রিটেনের কারিভুবনে বছরের সবচেয়ে আকর্ষণীয় এ উৎসবে যোগ দিতে ‘কারি অস্কার’ শিরোপা অর্জনের স্বপ্ন নিয়ে এবারও বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সারা দেশের সেরা রেস্টুরেন্ট প্রতিনিধিরা এসে হাজির হন রাজধানী লন্ডনে। গোটা আয়োজনটি উপস্থাপন করেন অভিনেতা ও কমেডিয়ান ওমিড ডিজালিল।

এছাড়া ওয়েস্ট মিডল্যান্ড ক্যাটাগরিতে সেরা রেস্টুরেন্টের পুরস্কার তুলে দিতে ভার্চুয়ালি পুরস্কার আয়োজনের সঙ্গে ভারতের মুম্বাই থেকে বিশেষভাবে যুক্ত হন বলিউড তারকা অভিষেক বচ্চন।

ব্রিটেনজুড়ে বিস্তৃত এশীয় তথা ইন্ডিয়ান কারি শিল্প হিসেবে পরিচিত রেস্টুরেন্ট শিল্পের ৯০ শতাংশের বেশিই বাংলাদেশি উদ্যোক্তাদের হাতে গড়া। বিগত বছরগুলোতে বাংলাদেশি রেস্টুরেন্ট উদ্যোক্তারাই অধিকাংশ পুরস্কার জিতে এলেও এ বছরই কিছুটা পিছিয়ে পড়ে তারা। মোট ১২ ক্যাটাগরিতে এ বছর তাদের দখলে আসে চার শিরোপা; দুইটি পায় পাকিস্তানি উদ্যোক্তারা এবং বাকিগুলো অর্জন করে ভারতীয়রা।

ব্রিটিশ কারি শিল্পে শেফ-ঘাটতি মেটাতে প্রবর্তিত ভিন্দালু ভিসার জন্য সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন  এ উৎসবের উদ্যোক্তা ব্রিটিশ কারি শিল্পের শীর্ষ মুখপাত্র ব্রিটিশ-বাংলাদেশি । উল্লেখ্য, তিনি দীর্ঘ ৪৫ বছর ধরে বিশ্বব্যাপী রন্ধন শিল্পের প্রসারে কাজ করে যাচ্ছেন।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published.