ভূমধ্যসাগরে নৌকাডুবি; ৩৩ বাংলাদেশিকে জীবিত উদ্ধার

ফাইল ছবি

ইউরোপ প্রবেশের সময় লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবির ঘটনায় ৩৩ বাংলাদেশিকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। এখনো ৫০ জনের বেশি নিখোঁজ রয়েছেন। 

সমুদ্র পথে ইউরোপ প্রবেশের সময় লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবির ঘটনা ঘটেছে। ইতিমধ্যে, নৌকা ডুবে যাওয়ার পর সাগর থেকে ৩৩ বাংলাদেশিকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থা বা আইওএম। এদিকে, নৌকাডুবির ঘটনায় এখনো ৫০ জনের বেশি নিখোঁজ রয়েছেন।

আইওএম-এর ভূমধ্যসাগরীয় এলাকার সমন্বয়ক ফ্ল্যাভিও ডি গিয়াকোমো জানিয়েছেন, তিউনিসিয়ার এসফ্যাক্স উপকূলে একটি জাহাজ ডুবে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। যেখানে ৫০জন অভিবাসী এখনো নিখোঁজ রয়েছেন। ৩৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের সবাই বাংলাদেশ থেকে এসেছে। আইওএম কর্মকর্তা আরও জানান, অভিবাসন প্রত্যাশীরা লিবিয়ার জাওয়ারা থেকে রওনা দিয়েছিল।

এদিকে, তিউনিসিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রী মোহাম্মদ জেকরি জানিয়েছেন, সমুদ্রে তেলের খনিতে কর্মরত শ্রমিকরা একটি নৌকা ডুবে যেতে দেখেন। এরপর সেখানে নৌবাহিনীর সদস্যদের পাঠানো হয়েছে। তিউনিসিয়ার রেডক্রিসেন্ট জানিয়েছে, লিবিয়া থেকে রওনা হয়ে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দেয়ার সময় অন্তত ৫৭ জন অভিবাসন প্রত্যাশী সমুদ্রে ডুবে গেছে। ডুবে যাওয়া নৌকাটি ৯০ জনের মতো যাত্রী বহন করছিল বলে জানা গেছে। 

তিউনিসিয়ার বার্তা সংস্থা টিএপি জানিয়েছে, সোমবার তিউনিসিয়ার উপকূলে আরেকটি নৌকা যখন ডুবে যাওয়ার সময় নৌবাহিনী ১১৩ জনকে উদ্ধার করেছে। তারা সবাই বাংলাদেশ, মরক্কো এবং সাব-সাহারা আফ্রিকার নাগরিক ছিল।

তথ্য বলছে, ২০১৯ সালের মে মাসে লিবিয়া থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালি যাওয়ার সময় সাগরে ডুবে মারা গেছেন অন্তত ৪০ বাংলাদেশি।  আইওএম-এর তথ্যমতে, ২০২১ সালের পাঁচ মাসে আফ্রিকা থেকে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইতালি এবং মল্টা যাওয়ার পথে সাগরে ডুবে ৫০০’র বেশি অভিবাসন প্রত্যাশী মারা গেছে।

সূত্রঃ বিবিসি বাংলা।

Leave a Comment

Your email address will not be published.